রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ০৬:১৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শ্রীলঙ্কায় গির্জা ও হোটেলে ভয়াবহ বিস্ফোরণে বহু হতাহত নদী দখল-দূষণমুক্ত ও নাব্য ফেরাতে মাস্টার প্ল্যানের খসড়া চূড়ান্ত বৈশাখের আয়োজন দেখতে আসছেন ১০ দেশের সাংবাদিক এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার সময়সূচি পরিবর্তন প্রশ্নফাঁসে বাতিল হলো কওমির দাওরায়ে হাদিসের পরীক্ষা প্রাথমিকে ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছে লক্ষাধিক শিক্ষার্থী নুসরাত হত্যাকাণ্ড নিয়ে পিবিআইয়ের সংবাদ সম্মেলন দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে লোটে শেরিং ৮ ঘণ্টা পর কুমিল্লা ইপিজেডের আগুন নিয়ন্ত্রণে শারীরিক অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ : সিঙ্গাপুরে নেয়া হচ্ছে না নুসরাতকে মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে বদলে যাচ্ছে পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নের রং মালয়েশিয়ায় বাস খাদে পড়ে ৬ বাংলাদেশিসহ ১০ জন নিহত পহেলা বৈশাখ নিয়ে গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা : আইজিপি অগ্নি নিরাপত্তায় প্রধানমন্ত্রীর একগুচ্ছ নির্দেশনা




বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারি বন্ধ, হাহাকার বেকার শত শত শ্রমিক

বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারি বন্ধ, হাহাকার বেকার শত শত শ্রমিক

বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারি থেকে সব ধরনের ম্যানুয়াল পদ্ধতিতেও পাথর উত্তোলন বন্ধ এবং সনাতন পদ্ধতিতে (হাতে উত্তোলন চালো আছে কিন্তু বিছনাকািন্দ বিজিবি কর্মকর্তারা পাথর উত্তোলন করতে বাধা দিচ্ছে। এদিকে দেশের সর্ববৃহৎ পাথর কোয়ারি বিছনাকান্দি পাথর উত্তোলন বন্ধ থাকার কারণে বেকার হয়ে পড়েছেন লক্ষাধিকর পাথর শ্রমিক।



বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারি  থেকে  সব ধরনের ম্যানুয়াল পদ্ধতিতেও পাথর উত্তোলন বন্ধ এবং সনাতন পদ্ধতিতে (হাতে উত্তোলন  চালো আছে কিন্তু বিছনাকািন্দ বিজিবি কর্মকর্তারা পাথর উত্তোলন করতে বাধা দিচ্ছে। এদিকে দেশের সর্ববৃহৎ পাথর কোয়ারি বিছনাকান্দি পাথর উত্তোলন বন্ধ থাকার কারণে বেকার হয়ে পড়েছেন লক্ষাধিকর পাথর শ্রমিক।

বিছনাকান্দি কোয়ারি টিতে পাথর উত্তোলন পক্রিয়া বন্ধের ফলে চলছে না কোনো পাথর পরিবহনের শত শত ট্রাক্টর ও ট্রাক। পাথরশূন্য থাকায় এমনিতেই বন্ধ হয়ে গেছে  উপজেলার পাথর ভাঙ্গার ছোট বড় কয়েক সহস্রাধিক স্টোন ক্রাশার মিল। বড় ধরনের লোকসান এড়াতে বেশিরভাগ স্টোন ক্রাশার মিলের মালিকরা তাদের শ্রমিকদের বিদায় দিয়ে স্টোনক্রাশার মিল বন্ধ ঘোষণা করে অফিসে তালা ঝুলিয়েছেন।

এক কথায়  কোয়ারির পাথর উত্তোলন, পরিবহন ও পাথর ভাঙ্গার সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে রয়েছে। কোয়ারিসমূহে পাথর উত্তোলন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে পড়ায় চরম অমানবিক জীবনযাপন করছেন এক্ষেত্রে খেটে খাওয়া  উপজেলার লক্ষাধিক পাথর শ্রমিক। বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারি পরিদর্শনের সময় আলাপকালে শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা জানান, দীর্ঘদিন থেকে বিছনাকান্দি কোয়ারি থেকে পাথর উত্তোলন সাপেক্ষ জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন লক্ষাধিক  পাথর শ্রমিক। তারা জানান, সুদীর্ঘকাল থেকে এসব কোয়ারি থেকে পাথর উত্তোলনের ফলে বর্তমানে এসব কোয়ারির পাথরের স্তর অনেকটা গভীরে চলে গেছে। তারা জানান, গভীর এসব গর্তের পাথর তুলতে বালি অপসারণ ও সেচসাপেক্ষ কাজ করতে হয়। এক্ষেত্রে কিছুটা যান্ত্রিক পদ্ধতি অবলম্বন ছাড়া কোনোক্রমেই ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে এসব গর্তের পাথর উত্তোলন করা সম্ভব হয় না। তাই শেলু মেশিন, সেইপ মেশিন ছাড়া পাথর গর্ত তৈরি করা এবং পাথর উত্তোলন করা যায় না। এমতাবস্থায় এ পদ্ধতি অনুসরণ করে চলতে গেলেই প্রশাসন থেকে চালানো হয় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান। যে কারণে বাধ্য হয়েই বন্ধ রাখতে হয় পাথর উত্তোলন প্রক্রিয়া।  নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে  কোয়ারিতেই প্রতিদিন অভিযান পরিচালনা হয়। এ ব্যাপারে কথা হলে বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারির শ্রমিক রফিক মিয়া, সুজন সূত্রধর, মানিক মিয়া, জয়নুল, কবির জানান,  সনাতন পদ্ধতি কোয়ারিতে পাথর উত্তোলনে প্রশাসন তরফে বাধা দেয়া হচ্ছে।

এমতাবস্থায় কোয়ারিতে কাজে বন্ধ  বেকার হয়ে পড়ায় বর্তমানে আমরা মানবেতর জীবনযাপন করছি। বিছনাকান্দি পাথর উত্তোলন ও সরবরাহকারী শ্রমিকরা জানান, বিছনাকান্দি কোয়ারিতেও স্টোনক্রাশার মিলগুলোতে হাজার শ্রমিক কাজ করে দীর্ঘদিন থেকে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। বর্তমানে কোয়ারিতে পাথর উত্তোলন প্রক্রিয়া বন্ধ থাকায় আমাদের সাধারণ শ্রমিক পরিবারে যেন দুর্ভিক্ষ দেখা দিয়েছে। প্রতিদিনই বাড়ছে কর্মহীন মানুষের সংখ্যা। চুরি, ডাকাতি, ছিনতাইও বৃদ্ধি পাচ্ছে। অবনতি হচ্ছে আইনশৃঙ্খলারও। কোয়ারিতে পাথর উত্তোলন প্রক্রিয়া বন্ধ থাকার ফলে বিছনাকান্দিসহ উপজেলার সবকটি এলাকায় এক রকম মৌন দুর্ভিক্ষ দেখা দিয়েছে। বেকার হয়ে পড়েছে লক্ষাধিক পাথর শ্রমিক। কর্মহীন এসব মানুষের ঘরে ঘরে দেখা দিয়েছে দুর্ভিক্ষ। পরিবার পরিজন নিয়ে চরম অমানবিকভাবে বেঁচে আছেন শ্রমিকরা।

image_print

সংবাদ শেয়ার করুন



মন্তব্য বন্ধ আছে।




ক্যালেন্ডার

এপ্রিল 2019
সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
« মার্চ    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  



© All rights reserved © 2017 Uttarancholsylhet.com
 
Design & Developed BY TC Computer