রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ০৬:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শ্রীলঙ্কায় গির্জা ও হোটেলে ভয়াবহ বিস্ফোরণে বহু হতাহত নদী দখল-দূষণমুক্ত ও নাব্য ফেরাতে মাস্টার প্ল্যানের খসড়া চূড়ান্ত বৈশাখের আয়োজন দেখতে আসছেন ১০ দেশের সাংবাদিক এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার সময়সূচি পরিবর্তন প্রশ্নফাঁসে বাতিল হলো কওমির দাওরায়ে হাদিসের পরীক্ষা প্রাথমিকে ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছে লক্ষাধিক শিক্ষার্থী নুসরাত হত্যাকাণ্ড নিয়ে পিবিআইয়ের সংবাদ সম্মেলন দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে লোটে শেরিং ৮ ঘণ্টা পর কুমিল্লা ইপিজেডের আগুন নিয়ন্ত্রণে শারীরিক অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ : সিঙ্গাপুরে নেয়া হচ্ছে না নুসরাতকে মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে বদলে যাচ্ছে পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নের রং মালয়েশিয়ায় বাস খাদে পড়ে ৬ বাংলাদেশিসহ ১০ জন নিহত পহেলা বৈশাখ নিয়ে গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা : আইজিপি অগ্নি নিরাপত্তায় প্রধানমন্ত্রীর একগুচ্ছ নির্দেশনা




আইসিটি সেক্টরে আগামীতে লিজেন্ড হবে বাংলাদেশ : পলক

আইসিটি সেক্টরে আগামীতে লিজেন্ড হবে বাংলাদেশ : পলক



তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেছেন, ‘আগামীতে বিশ্বে আইসিটি সেক্টরে লিজেন্ড হবে বাংলাদেশ। সে লক্ষ্যে ২০২১ সালকে টার্গেট করে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। সময় এসেছে মেধাভিত্তিক অর্থনীতির ওপরে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার।’

আজ শনিবার সকালে কক্সবাজার শহরের হোটেল-মোটেল জোনের এক অভিজাত হোটেলে তিন দিনব্যাপী ‘তড়িৎ, কম্পিউটার কৌশল ও যোগাযোগ-প্রযুক্তিবিষয়ক দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক সম্মেলন’-এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘নেক্সট আইসিটি লিডার কারা হবে? নেক্সট আইসিটি ডেস্টিনেশন কোথায়? আমরা বলছি, নেক্সট আইসিটি ডেস্টিনেশন হলো বাংলাদেশ। ২০২১ সালে আমরা কোথায় যাব তার একটা টার্গেট আমরা নিয়েছি এবং সেই টার্গেটকে সামনে রেখেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের এখন সময় এসেছে মেধাভিত্তিক অর্থনীতির ওপরে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার।’

জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আজ থেকে ১০ বছর আগে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিলো ৫৬ লাখ, এখন নয় কোটি ৬০ লাখ। আমাদের গভর্নমেন্টে কোনো ডিজিটাল সার্ভিসই ছিল না। এখন মোটামোটি প্রায় ৫০০ সার্ভিস আমরা করেছি।’

এ সময় আইটি সেক্টরে কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আইটি সেক্টরে কর্মসংস্থান বলে তেমন কিছুই ছিল না। এখন প্রায় ১০ লাখ ছেলে-মেয়ে কাজ করছে, ছয় লাখ ফ্রি-ল্যান্সার এবং আরো অন্যান্য সফওয়্যার, হার্ডওয়্যার ডিজিটাল ডিভাইস ম্যানুফ্যাকচারিং ক্ষেত্রে কাজ করছে।’

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি এলাকা ডিজিটাল হাইস্পিড কানেক্টিভিটির আওতায় নিয়ে আসা হবে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘কমিউনিকেশন নেটওয়ার্ক ইউনিভার্সিটি থেকে গ্রাম পর্যন্ত চলে গেছে। আমাদের প্রায় তিন হাজার ৮০০টি ইউনিয়নে আমরা ফাইবার অপটিক ক্যাবল, হাইস্পিড ইন্টারনেট, ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি পৌঁছে দিয়েছি। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি ইউনিয়ন, প্রত্যেকটি ইঞ্চি মাটি ডিজিটাল হাইস্পিড কানেক্টিভিটির আওতায় আমরা ইনশা আল্লাহ নিয়ে আসব।’

এ ছাড়াও সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, চুয়েটের উপচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, আইইইই বাংলাদেশ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সেলিয়া শাহনাজ প্রমুখ।

image_print

সংবাদ শেয়ার করুন



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।




ক্যালেন্ডার

এপ্রিল 2019
সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
« মার্চ    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  



© All rights reserved © 2017 Uttarancholsylhet.com
 
Design & Developed BY TC Computer